প্রকাশিত : Wed, Aug 16th, 2017

জেনে নিন, যে ফুলের স্পর্শে মানুষের মৃত্যু হয়

যে ফুলের স্পর্শে মানুষের মৃত্যু হয়

নিউজ ডেস্কঃ ষ্টির শুরু থেকেই ফুলের প্রতি রয়েছে এক ধরনের দুর্বলতা।কিন্তু এই ফুলের মাঝেও লুকিয়ে রয়েছে মরণ ফাঁদ। ফুল হচ্ছে প্রকৃতি সুন্দরের প্রতীক। অনেকেই না জেনে এমন কিছু ফুল স্পর্শ করে প্রাণ হারিয়েছে।

আর তাই জনসচেতনতা বাড়াতে তাই ব্রিটেনের এমনই মারাত্মক কিছু উদ্ভিদের সঙ্গে পরিচয় ঘঠিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

দেখে নেওয় যাক এদের পরিচয়:

১. মঙ্কসহুড : এটি অ্যাকোনাইট নামেও পরিচিত। বড় আকারের লম্বাটে সবুজ পাতা আর বেগুনি রংয়ের লম্বা ফুল। এর স্পর্শে হৃদক্রিয়া বন্ধ হতে থাকবে। ত্বকের ভেতরে নিমিষেই প্রবেশ করে এটি। ব্রিটেনের সবচেয়ে বিষাক্ত প্রাণঘাতী উদ্ভিত এটি।

২. ফক্সগ্লাভ : বনে জন্মালেও মানুষের কাছে খুব প্রিয় এক আকর্ষণীয় চেহারার কারণে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে বেগুনি রংয়ের ফুলগুলোর মধ্যে লাল আর হলুদের প্রিন্ট দেখা যায়। এর সামান্য অংশ মুখে গেলে বমি, ডায়রিয়া এবং হৃদক্রিয়া বন্ধ হওয়ার মতো ঘটনা ঘটবে। ত্বকে স্পর্শ লাগলে চুলকানি হয়।

৩. কুকু পিন্ট : লর্ডস অ্যান্ড লেডিস নামেও সুপরিচিত। বনে-বাদাড়ে জন্মে। ফুলগুলো গোলাকার। এর চারদিকে সবুজ পাতা হুডের মতো ঢেকে রাখে। খাওয়ামাত্র শ্বাস বন্ধ হতে থাকবে। অনেকে এর কারণে হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়তে হয়েছে।

৪. ইংলিশ ইয়েও : লাল গোলাকার ফলের মতো দেখতে। এর পাতাসহ সবকিছুই বিষাক্ত। খেয়ে ফেললে মাথা ঘোরানো, শুকনো মুখ এবং চোখের পিউপিলের প্রসারণ ঘটে। হৃৎস্পন্দন এলোমেলো হয়ে যায় এবং মৃত্যুও ঘটতে পারে।

৫. হেমলক : এটা ব্রিটেনের নিজস্ব উদ্ভিদ নয়। তবে প্রায় সব জায়গায় দেখা মেলে। সাধারণত নদীর তীরবর্তী অঞ্চলে দেখা যায়। এটি খাওয়ামাত্র ফুসফুস কার্যক্ষমতা হারাতে থাকে এবং এতে মৃত্যু নিশ্চিত। সক্রেটিসের জীবনাবসান ঘটায় এই হেমলক।

5,002 total views, 3 views today

Related Posts

Share

Comments

comments

রিপোর্টার সম্পর্কে

%d bloggers like this: