প্রকাশিত : Sat, Nov 11th, 2017
বিভাগঃ সারাবাংলা

তুরাগে এক যুবতীকে গনধর্ষণের অভিযোগ

মোল্লা তানিয়া ইসলাম ( তমা )ঃ  রাজধানীর তুরাগ থানাধীন রোসাদিয়া এলাকায় এক যুবতীকে জোড় পূর্বক গনধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে । এব্যাপারে ঐ ধর্ষিতা বাদী হয়ে তুরাগ থানায় একটি গনধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন । ধর্ষণের শিকার ঐ যুবতী (২৬) কে শনিবার সকালে  ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে । মামলা সুত্রে জানাযায় ধর্ষণের শিকার ঐ যুবতী গত ৮ নভেম্বর রোসাদিয়া এলাকার জৈনক সোলায়মানের মালিকানাধীন বস্তি ঘরের একটি রুম ভাড়া নেয় এবং ঐ দিনেই ঘর মালিক সসোলায়মান যুবতির ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাকে ধর্ষণ করে এবং এই ঘটনা কাউকে জানালে তাকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়, জীবনের ভয়ে ঐ যুবতী ধর্ষণে ঘটনাটি কাউকে না বলে চুপকরে থাকে। পরের দিন ৯ নভেম্বর দিনগত রাতে সোলায়মানের নেত্রীত্বে আরো ৪/৫ জন অগ্যাত যুবক ঐ যুবতীর রুমে এসে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণ করে। সকাল বেলা যুবতীর শারীরিক অবস্থা অবনতি হলে সোলায়মানকে চিকিৎসা করানোর কথা বললে ক্ষিপ্ত হয়ে লম্পট সোলায়মান লোহার পাইপ দ্বারা ঐ যুবতীকে পিটিয়ে মারাত্তক আহত করে। পরে প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে যুবতীকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে পাঠায়। প্রথমিক চিকিৎসা শেষে ঐ যুবতী তুরাগ থানায় উপস্থিথ হয়ে ১। সোলায়মান (৩৭), ২। সুবহান (২৫) এর নাম উল্লেখ্য করে ও অগ্যাত ৩/৪ জনকে আসামী করে  একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের  করেন যার নং-৯ তাং ১০/১১/২০১৭ইং। মামলা হওয়ার পর গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে সোলায়মান ও সুবহাকে আটক করে তুরাগ থানা পুলিশ। সকালে তাদেরকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে। ঘটনার সততা নিশ্চিত করে তুরাগ থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ সফিকুর রহমান বলেন,  উক্ত ঘটনায় ১ ও ২ নং আসামীকে আটক করা হয়েছে এবং বাকিদের গ্রেপ্তারের পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে আশা করি খুব শিঘ্রই তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে আমরা সক্ষম হব। আটককৃত সোলায়মান লক্ষিপুর জেলার, রায়পুর থানার, চরবংশি গ্রামের মজিদ লস্করের ছেলে ও  সুবহান ফরিদপুর জেলা সদরের উলুকান্দা এলাকার আমিনুল ইসলামের ছেলে। বর্তমানে তারা উভয়ে তুরাগের রোশাদিয়া বস্তী এলাকার বাসিন্দা।

7,142 total views, 2 views today

Related Posts

Share

Comments

comments

রিপোর্টার সম্পর্কে

%d bloggers like this: