সকাল ৮:৪১ | মঙ্গলবার | ২১শে মে, ২০১৯ ইং | ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

উত্তরা ট্রাফিক বিভাগের উদ্যোগে শিশুদের  হেলমেট বিতরণ

মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক সুমনঃ  রাজধানীর উত্তরা ১১ নাম্বার চৌরাস্তা এলাকায়  মোটরসাইকেলে আরোহী শিশুদের মধ্যে হেলমেট বিতরণ করেন উত্তরা ট্রাফিক বিভাগ।
সোমবার সকালে সাড়ে ১১ টার দিকে উত্তরার ১১ নং সেক্টর সংলগ্ন জমজম টাওয়ার মার্কেটের সামনে শিশুদের হেলমেট, ফুল ও চকলেট বিতরণ করা হয়।
ট্রাফিক বিভাগের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার জুলফিকার আলী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
তিনি বলেন, ‘উত্তরা ট্রাফিক জোনের পক্ষ থেকে একটি ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা এটি। আমরা যারা রাস্তায় কাজ করি বাস্তবতাটা হচ্ছে আইনের সুষ্ঠু প্রয়োগ করতে গিয়ে দেখছি শিশুদের বিষয়টা উপেক্ষিতই রয়ে যাচ্ছে। যারা বাইক ব্যবহার করেন তারা অনেকেই শিশুদের জন্য হেটমেট ব্যবহার করেন না।’
জুলফিকার আলী বলেন, ‘অভিভাবকদের সচেতন করতে আমরা এটি একটি মেসেজ দিচ্ছি। একভাবে আমরা তাদের সেফটি ও দিচ্ছি। টোটাল ১৩টি পয়েন্টে চেক পোস্ট করা হচ্ছে। মোটরযান আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া হবে না।’
পরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে বাইকারদের ব্যাপারে নিজের অভিজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।
বাইকারদের কাগজপত্র দেখতে চাইলে তারা বলে, মামলা দিবেন, এই দেখেন মামলা খাইছি। লজ্জা দেয়ার জন্য মামলা দেয়া হয়। কেনো সচেতন হবে না।
আবার হেলমেটবিহীন বাইকারদের ধরলেই বলে, এই যে এখানেই যাবো। হেলমেটের কি দরকার?
জুলফিকার আলী বলেন, ‘২শ টাকার মামলা অনেকেই পাত্তা দেয় না। তো সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে প্রথমে। যে দুই লাখ টাকা দিয়ে বাইক কিনতে পারে তারা হেলমেট কিনতে পারবে না? এটা কেমন কথা।
ট্রাফিক বিভাগের এই সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, ‘দুর্ঘটনা দেখেছি। তাই এর বাস্তবতাটা আমরা বুঝি। অফিসারদের নিকট থেকে টাকা নিয়ে বাঁচ্চাদের জন্য হেলমেট কিনেছি, ফুল কিনেছি, চকলেট কিনেছি। আমাদের এই ছোট প্রচেষ্টা অভিভাবকদের যদি একটু সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজে আসে তাহলে খুশি হবো।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ খবর



» নিখোজ সংবাদ

» এস এসসি পরীক্ষায় উর্ত্তীর্ণ মেধাবীদের শুভেচ্ছা ও অভিন্দন

» গায়ে কেরোসিন ঢেলে ‘গৃহবধূর’ আগুনে পুড়িয়ে হত্যা

» ‘ফণী’ বাংলাদেশে ৬ ঘণ্টা অবস্থান করবে

» বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল অতিক্রম করছে ফণী

» উত্তরায় বাসার ছাদ থেকে ২ গৃহকর্মীর লাশ উদ্ধার

» বাংলাদেশে মহান মে দিবসের গুরুত্ব

» আশুলিয়া কাঠগড়ায় স্বামীকে আটকে স্ত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৪

» আজ মহান মে দিবস

» এসব কারণে স্ট্রোক হতে পারে!

» যে বিমান অনির্দিষ্টকাল উড়বে আকাশে!

» তুরাগে ৫৩৬ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার,আটক-৩

» নব গঠিত ৫৩ নং ওর্য়াড তুরাগের অনেক রাস্তা যেন কাদামাটির খাল

» জনপ্রিতিনিধিদের সংবর্ধণা দিবে উত্তরা প্রেসক্লাব সোসাইটি

» আউশকান্দি উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি ১২ ঘন্টাই বন্ধ থাকে, স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত ৪৪টি গ্রামের মানুষ।

আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

বাসা#৪৯, রোড#০৮, তুরাগ, ঢাকা।
বার্তা কক্ষ : 01781804141
ইমেইল : timesofbengali@gmail.com

 

© এ.আর খান মিডিয়া ভিশন এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

      সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার টাইমস্ অফ বেঙ্গলী .কম

কারিগরি সহযোগিতায় এ.আর খান হোস্ট

,

Times of Bengali

উত্তরা ট্রাফিক বিভাগের উদ্যোগে শিশুদের  হেলমেট বিতরণ

মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক সুমনঃ  রাজধানীর উত্তরা ১১ নাম্বার চৌরাস্তা এলাকায়  মোটরসাইকেলে আরোহী শিশুদের মধ্যে হেলমেট বিতরণ করেন উত্তরা ট্রাফিক বিভাগ।
সোমবার সকালে সাড়ে ১১ টার দিকে উত্তরার ১১ নং সেক্টর সংলগ্ন জমজম টাওয়ার মার্কেটের সামনে শিশুদের হেলমেট, ফুল ও চকলেট বিতরণ করা হয়।
ট্রাফিক বিভাগের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার জুলফিকার আলী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
তিনি বলেন, ‘উত্তরা ট্রাফিক জোনের পক্ষ থেকে একটি ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা এটি। আমরা যারা রাস্তায় কাজ করি বাস্তবতাটা হচ্ছে আইনের সুষ্ঠু প্রয়োগ করতে গিয়ে দেখছি শিশুদের বিষয়টা উপেক্ষিতই রয়ে যাচ্ছে। যারা বাইক ব্যবহার করেন তারা অনেকেই শিশুদের জন্য হেটমেট ব্যবহার করেন না।’
জুলফিকার আলী বলেন, ‘অভিভাবকদের সচেতন করতে আমরা এটি একটি মেসেজ দিচ্ছি। একভাবে আমরা তাদের সেফটি ও দিচ্ছি। টোটাল ১৩টি পয়েন্টে চেক পোস্ট করা হচ্ছে। মোটরযান আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া হবে না।’
পরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে বাইকারদের ব্যাপারে নিজের অভিজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।
বাইকারদের কাগজপত্র দেখতে চাইলে তারা বলে, মামলা দিবেন, এই দেখেন মামলা খাইছি। লজ্জা দেয়ার জন্য মামলা দেয়া হয়। কেনো সচেতন হবে না।
আবার হেলমেটবিহীন বাইকারদের ধরলেই বলে, এই যে এখানেই যাবো। হেলমেটের কি দরকার?
জুলফিকার আলী বলেন, ‘২শ টাকার মামলা অনেকেই পাত্তা দেয় না। তো সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে প্রথমে। যে দুই লাখ টাকা দিয়ে বাইক কিনতে পারে তারা হেলমেট কিনতে পারবে না? এটা কেমন কথা।
ট্রাফিক বিভাগের এই সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, ‘দুর্ঘটনা দেখেছি। তাই এর বাস্তবতাটা আমরা বুঝি। অফিসারদের নিকট থেকে টাকা নিয়ে বাঁচ্চাদের জন্য হেলমেট কিনেছি, ফুল কিনেছি, চকলেট কিনেছি। আমাদের এই ছোট প্রচেষ্টা অভিভাবকদের যদি একটু সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজে আসে তাহলে খুশি হবো।
সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন : Share on Facebook0Share on Google+0Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn0Pin on Pinterest0

সর্বশেষ খবর



এ বিভাগের অন্যান্য খবর



আমাদের সঙ্গী হোন

যোগাযোগ

বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় –

বাসা#৪৯, রোড#০৮, তুরাগ, ঢাকা।
বার্তা কক্ষ : 01781804141
ইমেইল : timesofbengali@gmail.com

 

© এ.আর খান মিডিয়া ভিশন এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

      সর্বস্বত্ব স্বাত্বাধিকার টাইমস্ অফ বেঙ্গলী .কম

কারিগরি সহযোগিতায় এ.আর খান হোস্ট